Breaking News
Home / এক্সক্লুসিভ / ভিডিওটি দেখে সাবধান হয়ে যান ! অনেক খারাপ দিন অপেক্ষা করছে!
Loading...

ভিডিওটি দেখে সাবধান হয়ে যান ! অনেক খারাপ দিন অপেক্ষা করছে!

ভিডিওটি দেখে সাবধান হয়ে যান ! অনেক খারাপ দিন অপেক্ষা করছে!

যেমন স্বামী,তেমন স্ত্রী,,তেমনি তাদের সন্তান

কক্সবাজারে কাঁদলেন কাঁদালেন এবং শিক্ষা দিলেন নির্বোধ মুসলিম শাসকদের তুর্কি ফার্স্ট লেডি। বিশ্বের রক্তচোষা দানব নেতাদের চোখে আঙ্গুল দিয়ে মানবতার দৃষ্টান্ত দেখিয়ে দিয়ে গেলেন এমিনি এরদোগান’ ।

প্রায় সাড়ে ৫ হাজার কিলোমিটার দূর থেকে ছুটে এসেছেন বিবেকের তাড়নায়, ৯ ঘণ্টা বিমান জার্নি শেষে রাত তিন টায় ল্যান্ড করেছিলেন ঢাকা বিমানবন্দরে, রেস্ট নিতে অস্বীকৃতি জানিয়ে সকালের নাস্তা সেরেই ছুটে যান প্রাইভেট বিমানে করে কক্সবাজার মায়ার টানে । কক্সবাজার নেমেই ছুটে যান প্রিয় মানুষগুলার খোঁজ খবর নিতে ও তাদের মুখে দুটি খাবার তুলে দিতে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ।

নিদ্রাহীন চোখে একটুও বিরক্তির ছাপ দেখিনি তাঁর, মুখে নেই কোন ক্লান্তির ছায়া, শরীরকে দেন নি একটু ও বিশ্রাম তারপরও থেমে থাকেন নি সেই সকাল থেকে এখন অব্দি । সাড়ে ৫ হাজার কিলোমিটার দূরে অবস্থিত অচেনা মানুষগুলাকে আপন করে নিয়েছেন মুহুর্তের মধ্যেই, বুকে জড়িয়ে নিয়ে ভালোবাসার পরম চাঁদরে ঢেকেছেন নির্যাতিত মানুষগুলাকে । শুনেছে তাদের উপর ঘটে যাওয়া ইতিহাসের সবচেয়ে নির্মমতা, কেদেছেন নিজে এমন কি কাঁদিয়েছেন উপস্থিত সকলকে ।

নিজ হাতে খাদ্য তুলে দিয়েছেন অভুক্তদেরকে, হাঁসপাতালে ছুটে গিয়ে খোঁজ খবর নিয়েছেন নির্যাতিত অসুস্থ মানুষগুলার , আসার সময় নিয়ে এসেছেন ১০০০ টন ত্রাণ সামগ্রী, যা কিনা বিলিয়ে দেওয়া হবে রোহিঙ্গা শরনার্থিদের জন্যে।

সৎ ব্যক্তির জীবনে সৎ সহধর্মিনি মিলে, সাহসী ব্যক্তির জীবনে সাহসী স্ত্রী মিলে আজ আবারো প্রমানিত । এমিনি এরদোগান আজ সেটাই করে দেখিয়েছেন যা বিশ্বের লক্ষ লক্ষ মুসলিম নেতাদের পক্ষে করা সম্ভব হয়নি । যা কিনা বিশ্বের ২০০ কোটি মুসলমান করে দেখাতে পারেনি আজ তাই করে দেখিয়েছেন এই সাহসী ফার্স্ট লেডি।

আল্লাহ! এরদোগান ও তার স্ত্রীর সমস্ত প্রচেষ্টা তুমি কবুল কর, মুসলিম জাতির কল্যাণে তাদের কাজ করার তাওফিক দাও। তাদের হায়াত বাড়িয়ে দাও। যোগ্যতা শক্তি বাড়িয়ে দাও।

যেমন স্বামী,তেমন স্ত্রী,,তেমনি তাদের সন্তান……….

কক্সবাজারে কাঁদলেন কাঁদালেন এবং শিক্ষা দিলেন নির্বোধ মুসলিম শাসকদের তুর্কি ফার্স্ট লেডি। বিশ্বের রক্তচোষা দানব নেতাদের চোখে আঙ্গুল দিয়ে মানবতার দৃষ্টান্ত দেখিয়ে দিয়ে গেলেন এমিনি এরদোগান’ ।

প্রায় সাড়ে ৫ হাজার কিলোমিটার দূর থেকে ছুটে এসেছেন বিবেকের তাড়নায়, ৯ ঘণ্টা বিমান জার্নি শেষে রাত তিন টায় ল্যান্ড করেছিলেন ঢাকা বিমানবন্দরে, রেস্ট নিতে অস্বীকৃতি জানিয়ে সকালের নাস্তা সেরেই ছুটে যান প্রাইভেট বিমানে করে কক্সবাজার মায়ার টানে । কক্সবাজার নেমেই ছুটে যান প্রিয় মানুষগুলার খোঁজ খবর নিতে ও তাদের মুখে দুটি খাবার তুলে দিতে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে ।

নিদ্রাহীন চোখে একটুও বিরক্তির ছাপ দেখিনি তাঁর, মুখে নেই কোন ক্লান্তির ছায়া, শরীরকে দেন নি একটু ও বিশ্রাম তারপরও থেমে থাকেন নি সেই সকাল থেকে এখন অব্দি । সাড়ে ৫ হাজার কিলোমিটার দূরে অবস্থিত অচেনা মানুষগুলাকে আপন করে নিয়েছেন মুহুর্তের মধ্যেই, বুকে জড়িয়ে নিয়ে ভালোবাসার পরম চাঁদরে ঢেকেছেন নির্যাতিত মানুষগুলাকে । শুনেছে তাদের উপর ঘটে যাওয়া ইতিহাসের সবচেয়ে নির্মমতা, কেদেছেন নিজে এমন কি কাঁদিয়েছেন উপস্থিত সকলকে ।

নিজ হাতে খাদ্য তুলে দিয়েছেন অভুক্তদেরকে, হাঁসপাতালে ছুটে গিয়ে খোঁজ খবর নিয়েছেন নির্যাতিত অসুস্থ মানুষগুলার , আসার সময় নিয়ে এসেছেন ১০০০ টন ত্রাণ সামগ্রী, যা কিনা বিলিয়ে দেওয়া হবে রোহিঙ্গা শরনার্থিদের জন্যে।

সৎ ব্যক্তির জীবনে সৎ সহধর্মিনি মিলে, সাহসী ব্যক্তির জীবনে সাহসী স্ত্রী মিলে আজ আবারো প্রমানিত । এমিনি এরদোগান আজ সেটাই করে দেখিয়েছেন যা বিশ্বের লক্ষ লক্ষ মুসলিম নেতাদের পক্ষে করা সম্ভব হয়নি । যা কিনা বিশ্বের ২০০ কোটি মুসলমান করে দেখাতে পারেনি আজ তাই করে দেখিয়েছেন এই সাহসী ফার্স্ট লেডি।

আল্লাহ! এরদোগান ও তার স্ত্রীর সমস্ত প্রচেষ্টা তুমি কবুল কর, মুসলিম জাতির কল্যাণে তাদের কাজ করার তাওফিক দাও। তাদের হায়াত বাড়িয়ে দাও। যোগ্যতা শক্তি বাড়িয়ে দাও।

Loading...