Breaking News
Home / যৌন সমস্যা / ঘন্টার পর ঘন্টা যৌন মিলন করুন বীর্য বের হবে না লিঙ্গ হবে লোহার মতো শক্ত৷সারা রাত তৃপ্তি দিন সারা রাত
Loading...

ঘন্টার পর ঘন্টা যৌন মিলন করুন বীর্য বের হবে না লিঙ্গ হবে লোহার মতো শক্ত৷সারা রাত তৃপ্তি দিন সারা রাত

ঘন্টার পর ঘন্টা যৌন মিলন করুন বীর্য বের হবে না লিঙ্গ হবে লোহার মতো শক্ত৷সারা রাত তৃপ্তি দিন সারা রাতঘন্টার পর ঘন্টা যৌন মিলন করুন বীর্য বের হবে না লিঙ্গ হবে লোহার মতো শক্ত৷সারা রাত তৃপ্তি দিন সারা রাতঘন্টার পর ঘন্টা যৌন মিলন করুন বীর্য বের হবে না লিঙ্গ হবে লোহার মতো শক্ত৷সারা রাত তৃপ্তি দিন সারা রাতঘন্টার পর ঘন্টা যৌন মিলন করুন বীর্য বের হবে

ঘন্টার পর ঘন্টা যৌন মিলন করুন বীর্য বের হবে না লিঙ্গ হবে লোহার মতো শক্ত৷সারা রাত তৃপ্তি দিন সারা রাত

বি: দ্র : ই্উটিউব থেকে প্রকাশিত সকল ভিডিওর দায় সম্পুর্ন ই্উটিউব চ্যানেল এর ।

এর সাথে আমরা কোন ভাবে সংশ্লিষ্ট নয় এবং আমাদের পেইজ কোন প্রকার দায় নিবেনা।
ভিডিওটির উপর কারও আপত্তি থাকলে তা অপসারন করা হবে। প্রতিদিন ঘটে যাওয়া নানা রকম ঘটনা আপনাদের মাঝে তুলে ধরা এবং সামাজিক সচেতনতা আমাদের লক্ষ্য এবং উদ্দেশ্য ।

মা-বাবাকে অবহেলা করলে সরকারি চাকরিজীবীদের বেতন কাটা

মা-বাবাকে অবহেলা – বড় হয়ে মা-বাবার প্রতি দায়িত্ব ভুলে যাওয়ার পথ বন্ধ। সন্তান হিসেবে মা-বাবার প্রতি দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন না করলে সরকারি চাকরিজীবীদের বেতন কাঁচি চালাবে খোদ সরকার। ‘প্রণাম বিল’ নামে এমনই একটি বিল গৃহীত হয়েছে ভারতের আসাম বিধান সভায়। দেশটির কোনো রাজ্যে এই প্রথম এমন বিল গৃহীত হলো।

এই আইন অনুযায়ী, রাজ্যের সরকারি চাকরিজীবীরা বৃদ্ধ বাবা-মাকে যত্ন না করলে, অত্যাচার বা অবহেলা করলে বাবা-মা সংশ্লিষ্ট দফতরে নালিশ জানাতে পারেন। সে ক্ষেত্রে কর্মচারীর বেতন থেকে ১৫ শতাংশ বাবা-মায়ের ব্যাংক অ্যাকাউন্টে সরাসরি জমা পড়বে। একই সুবিধা পাবেন প্রতিবন্ধী ভাই-বোনও।

শুক্রবার বিধানসভায় বিলটি গৃহীত হওয়ার পর রাজ্যের স্বাস্থ্য ও অর্থমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মা জানান, ভবিষ্যতে বেসরকারি ক্ষেত্রকেও এই আইনের আওতায় আনা হবে।

তিনি জানান, প্রতিবন্ধী ভাই-বোন থাকলে তাদের জন্যও বেতনের ৫ শতাংশ খরচ করতে হবে। তাদের অযত্ন করলেও কর্মীদের বেতনের অংশ সরাসরি ওই প্রতিবন্ধী ভাই বা বোনের অ্যাকাউন্টে জমা পড়বে।

পাশাপাশি, চাকরি করাকালীন কারও মৃত্যু হলে অনুকম্পামূলক নিযুক্তিতে যে জটিলতা দেখা যায় তা কাটাতে এবার থেকে শেষ মাসের বেতনের সমান বেতন তার স্বামী বা স্ত্রী অথবা নিকটতম আত্মীয়কে আজীবন দেওয়া হবে।

রাজ্যে প্রতিবন্ধীদের শুমারি শুরু হচ্ছে। চলতি বছর সব প্রতিবন্ধী এককালীন পাঁচ হাজার টাকা করে পাবেন। পরের বছর থেকে রাজ্য সরকার প্রতিবন্ধীদের অ্যাকাউন্টে মাসে এক হাজার টাকা সাহায্য পাঠাবে।

এদিকে বিল উত্থাপনের সময় হিমন্তের দেওয়া ভাষণের বিরোধিতা করে প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী তরুণ গগৈ বলেন, ‘অর্থমন্ত্রীর বক্তব্য থেকে ধারণা হয়, অসমীয়া সরকারি কর্মীরা বাবা-মায়ের যত্ন নেন না। এই ধরনের কথা দেশবাসীর সামনে অসমীয়াদের নিষ্ঠুর প্রতিপন্ন করে।’

Loading...